Bangladeshi Featured Review Video Review

কেমন ছিলেন বাংলাদেশের ‘ফেলুদা মিত্তির’

প্রদোষ মিত্র নামে তাকে অনেকে না চিনলেও ফেলুদা নামে ডাকলে তাকে চিনবে না এমন মানুষ বুঝি খুঁজে পাওয়া যাবেনা। বলছিলাম সত্যজিত রায়ের কালজয়ী চরিত্র প্রদোষ মিত্র ওরফে ফেলুদার কথা। ফেলুদা যে সত্যজিত রায়ের অন্যতম সেরা আবিষ্কার সেক্ষেত্রে হয়তো কারও কোন সন্দেহ থাকার কথা না। উপন্যাসের পাতায় যে রোমাঞ্চকর গোয়েন্দা কাব্য তিনি ফুটিয়ে তুলেছেন সেটা নতুন করে বলবার কোন অবকাশ নেই। শুধু যে সাহিত্যের মধ্যে ফেলুদা বন্দি ছিলেন তা কিন্তু নয়। সত্যজিত রায় নিজেই ফেলুদাকে বড় পর্দায় আনেন। প্রথমবার বড় পর্দায় ফেলুদা হয়েছিলেন শক্তিশালী অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়।আস্তে আস্তে ফেলুদা চরিত্রে অভিনয় করেছেন সব্যসাচী চক্রবর্তী, আবীর চ্যাটার্জী এবং পরমব্রত চ্যাটার্জী। তবে এর মধ্যে সর্বাধিক পরিচিতি লাভ করেন সব্যসাচী চক্রবর্তী।

এবার এই ফেলুদা চরিত্রে অভিনয় করেছেন সম্পূর্ণ বাংলাদেশী একজন। সত্যজিত রায়ের ‘নয়ন রহস্য’ উপন্যাস অবলম্বনে ওয়েবসিরিজ নির্মাণ করেছেন তৌকির আহমেদ। যেখানে ফেলুদা চরিত্রে অভিনয় করেছেন আহমেদ রুবেল। তাছাড়া জটায়ু এবং তোপসে চরিত্রে অভিনয় করেছেন আজাদ আবুল কালাম এবং নওফেল আশরাফি জিসান। তাছাড়া পুরো সিরিজে অভিনয় করেছেন রওনক হাসান, আবুল হায়াত, তৌকীর আহমেদ, রাহাত আলম মামুনুর রশীদ, কেএস ফিরোজ।







গল্পে দেখা যায় নাম্বার সম্বলিত তথ্য বলে দেওয়ার এক আজব ক্ষমতা থাকে নয়নের। আর তাকে ঘিরেই তৈরী হয় আশেপাশের খারাপ চক্রান্ত যারা নয়নের এই ক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে অধিক উপার্জন করতে চায়। আর এই নয়নকে রক্ষা করতেই ফেলুদার সঙ্গী হন তার বন্ধু জটায়ু এবং ভাগ্নে তোপসে। এভাবেই গল্পটি চলতে থাকে। ওয়েব সিরিজটি দেখা যাবে বায়োস্কোপে।একেবারে পুরোদমে বাংলাদেশী এরেঞ্জমেন্ট হওয়ায় উপভোগ্য ছিল ৮০ মিনিটের ৩ পর্বের এই ওয়েবসিরিজ। যেখানে নিঁখুত ভাবে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করা হয়েছে সব কিছু। তাছাড়া অভিনয়ের জায়গা থেকেও কেউ যেন এক চুল পরিমাণ ছাড় দেন নি। তবে ফেলুদার হাতে সিগারেট না থাকাটা একটু কেমন জানি বেমানান দেখিয়েছে। তবে সবকিছু হিসেব করলে সম্পূর্ণ বাংলাদেশী ফেলুদা সত্যজিত রায়ের ফেলুদাকে অনেকাংশে ছুঁতে পেরেছে পুরোদমে।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *