Bangladeshi Contents Movie News

কেমন মায়া’র জাল বুনেছেন নির্মাতা মাসুদ পথিক?

আগামী ২৭ ডিসেম্বর প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে এবছরের শেষ সিনেমা “মায়া – দ্য লস্ট মাদার।” সিনেমাটির পরিচালনার পাশাপাশি চিত্রনাট্য লিখেছেন মাসুদ পথিক এবং প্রযোজনায় রয়েছে ব্রাত্য ক্রিয়েশন। শিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদ’র চিত্রকর্ম “ওমেন” এবং কবি কামাল চৌধুরী’র “যুদ্ধশিশু” কবিতা অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি। সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন ভারতের অভিনেত্রী মুমতাজ সরকার এবং নবাগত অভিনেতা দেবাশীষ কায়সার। এছাড়াও অভিনয় করেছেন  প্রাণ রায়, জ্যোতিকা জ্যোতি, সৈয়দ হাসান ইমাম, ঝুনা চৌধুরী, লীনা ফেরদৌসী, নারগিস আক্তার, আসলাম সানী, শাহাদাত হোসেন নিপু প্রমুখ।

সিনেমাটির গল্প সম্পর্কে নির্মাতা বলেন, “বীরাঙ্গনা এবং যুদ্ধশিশুদের প্রেক্ষাপট নিয়ে নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি। এছাড়াও সিনেমাতে রয়েছে বর্তমান সময়ে বয়ে বেড়ানো এক নৃশংসতার গল্প। আমরা সিনেমার মাধ্যমে যেমন দ্বায়িত্ব বোধের কথা বলেছি তেমনি সুখ-দুঃখের কথাও বলেছি। আমি আশা করি কেউ সিনেমাটি দেখলে প্রতারিত হবেন না।” সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির পর বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রদর্শনের পরিকল্পনা করেছেন নির্মাতা।







সিনেমার নামকরণ সম্পর্কে নির্মাতা বলেন, “মায়া একটি ইলিউশান। এটি আমাদের জাতীয়তা, বাঙ্গালী সত্ত্বা এবং চেতনার সাথে সম্পৃক্ত। ট্যাগ লাইন হিসেবে রয়েছে “দ্য লস্ট মাদার”। এর মানে, মাকে হারিয়ে ফেলেছে কোনো এক সন্তান, এবং তাকে খুঁজতে বের হয়েছে সে।” তিনি আরও বলেন, “বীরাঙ্গনা এবং যুদ্ধশিশুদের নিয়ে এটি একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা”




“মায়া” কেনো দেখবে দর্শক এ বিষয়ে নির্মাতা বলেন, “মাকে চিনতে হলে, বোনকে চিনতে হলে, দেশকে চিনতে হলে, নিজের অস্তিত্বকে অনুভব করতে হলে মায়া দেখতে হবে। কারণ, তিন লক্ষ মা – বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত হয়েছে এই স্বাধীনতা।” নির্মাতা বীরাঙ্গনা এবং যুদ্ধশিশুদের সামাজিক অবস্থার চিত্র তুলে ধরতে চেয়েছেন সিনেমায়।




২ ঘন্টা ৩ মিনিট ৭ সেকেন্ড ব্যাপ্তি এই সিনেমাটি গত ৩রা ডিসেম্বর  কিছু দৃশ্য এবং সংলাপ কর্তনের মাধ্যমে সেন্সর ছাড়পত্র পায়। গত ২০১৬ সালে সিনেমাটি নির্মাণের জন্য তথ্য মন্ত্রনালয় ৩৫ লক্ষ টাকা অনুদান দিলেও সিনেমাটি নির্মাণে ইতিমধ্যে বাজেট ছাড়িয়ে গেছে এক কোটির উপরে। সাড়ে তিনবছর যাবৎ দৃশ্য ধারণের পর অবশেষে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে চলেছে সিনেমাটি। নির্মাতা মাসুদ পথিক এর দ্বিতীয় চলচ্চিত্র এটি। প্রথম চলচ্চিত্র “নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ” এর জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার অর্জন করেন তিনি। মাসুদ পথিক পরিচালকের পাশাপাশি একজন কবি।




মায়া’র টিজার দেখুনঃ-

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *